কুর্মিটোলা ক্যাম্পের নারীর জীবন বিষয়ে নারীপক্ষর গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন ও মত বিনিময় সভা


২৩ আশ্বিন ১৪২৩/৮ অক্টোবর ২০১৬, শনিবার নারীপক্ষর নাসরীন হক সভাকক্ষে নারীপক্ষ পরিচালিত নারীবাদী অংশগ্রহণমূলক গবেষণা প্রকল্পের কুর্মিটোলা ক্যাম্পের নারীর জীবন বিষয়ে নারীবাদী অংশগ্রহণমূলক গবেষণা: ফলাফল উপস্থাপন ও মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার উদ্দেশ্য ছিল, কুর্মিটোলা ক্যাম্পের নারীর জীবন বিষয়ে নারীবাদী অংশগ্রহণমূলক গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন এবং তাদের নাগরিক ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় বাঁধাসমূহ সম্পর্কে মতবিনিময় করা। সভায় নারীপক্ষর সভানেত্রী রেহানা সামদানী স্বাগত বক্তব্য রাখেন। নারীবাদী অংশগ্রহণমূলক গবেষণার উদ্দেশ্য ও গবেষণা থেকে পাওয়া তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করেন নারীপক্ষর সদস্য ও প্রকল্প সমন্বয়কারী মাহীন সুলতান। গবেষণা প্রক্রিয়া ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা উপস্থাপন করেন প্রকল্প কর্মদল সদস্য মাকসুদা বেগম। গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন করেন প্রকল্পের সহ-গবেষণা কর্মকর্তা লাবিবা ইসলাম।

এই গবেষণাটি করতে গিয়ে বিভিন্ন পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে নারীপক্ষ কেন উর্দুভাষীদের নিয়ে গবেষণাটি করছে সেই প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছে। উপস্থাপনার মাধ্যমে নারীপক্ষ সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরে যে, নারীপক্ষর স্বপ্ন ও মূলনীতির সাথে গবেষণার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট। নারীপক্ষ মনে করে, উর্দুভাষী নারীরা উন্নয়নের মূলস্রোতধারার বাইরে। নারী হিসাবে এবং উর্দুভাষী হিসাবে তারা বহুমূখী বৈষম্যের শিকার এবং মানবাধিকার লংঙ্ঘনের অধিক ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থানে। নারীপক্ষ একটি নারী সংগঠন হিসাবে উর্দুভাষী নারী জনগোষ্ঠীকে এই ঝুঁকি মোকাবেলায় তাদের সংগঠিত করে নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে।

সভায় উর্দুভাষী জনগোষ্ঠী থেকে মতামত প্রকাশ এবং নাগরিক সমাজ সংগঠন ও সংবাদ মাধ্যম কর্মীদের সাথে মতামত সেশনটি পরিচালনা করেন নারীপক্ষর সদস্য ড. ফিরদৌস আজীম। উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন কুর্মিটোলা ক্যাম্পের চেয়ারম্যান জালালউদ্দিন ভন্টু এবং ক্যাম্পের ১০ জন নারী, ১২ জন পুরুষ, বিভিন্ন বেসরকারী সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ ও সাংবাদিকগণ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্য ড. মেঘনা গুহঠাকুরতা। সমাপনী বক্তব্য ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন নারীপক্ষর সভানেত্রী রেহানা সামদানী।